2 C
New York
Saturday, November 27, 2021
spot_img

স্বাধীনতার ৫০ বছরেও নির্মাণ হয়নি ফতেহপুর ব্রীজ, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো পারাপার ***

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার পশ্চিম ইউনিয়নের ফতেহপুর গ্রামে ভাটা নদীর ওপর জরাজীর্ণ বাঁশের সাঁকো দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন পারাপার হচ্ছেন উপজেলার ৭টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষ। প্রায়ই সাঁকো থেকে পরে গিয়ে ঘটছে দূঘর্টনা। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন ক্ষুদে শিক্ষার্থী ওই সাঁকো থেকে পরে গিয়ে আহতও হয়েছেন। প্রায় ৩০০ ফুট লম্বা এই সাঁকোটি ওই এলাকার ৭ গ্রামের প্রায় ২ লাখ মানুষের নবীনগরের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। ১৯৩৭ সালে প্রতিষ্ঠিত ফতেহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নবীনগর পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, হযরত ওয়ালীশাহ মাজার শরীফসহ একাধিক মসজিদ-মাদ্রাসা ও কিন্ডারগার্টেন রয়েছে ওই এলাকায়।

এলাকাবাসির দীর্ঘদিনের দাবি সাঁকোর পরিবর্তে এখানে একটি ব্রীজ নির্মাণ করা হলে ওই এলাকার জনসাধারণের যেমন সুবিধা হতো তেমনি কোমলমতি স্কুল পড়–য়া শিক্ষার্থী, বয়ঃবৃদ্ধরা বেঁচে যেতেন নানান অনাকঙ্খিত দূর্ঘটনা থেকে। স্বাধীনতার আগে ও পরে নৌ-যোগে পারাপার হলেও প্রায় ৩০ বছর ধরে এলাকার সুবিধাবঞ্চিত মানুষগুলো জীবন ও জীবিকার তাগিদে নিজস্ব অথার্য়নে প্রতিবছরই এই সাঁকোটি তৈরি করে চলাচল করছেন। এই সাঁকোটি তৈরি করতে প্রায় দুই থেকে তিন লাখ টাকা ব্যয় হয়। এলাকাবাসির কাছ থেকে চাঁদা তুলে সাঁকো তৈরি ও মেরামতের কাজ করা হয়। তবে শুরুর দিকে সাঁকোটির দৈর্ঘ্য ৩০০ মিটার থাকলে বর্তমানে সাঁকোর আশে পাশে মাটি ভরাটের ফলে তা দুইশ মিটার হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে এলাকাবাসি…..

এ ব্যাপারে পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ফিরোজ মিয়া বলেন….

বর্তমান সরকার জনগণের সরকার উল্লেখ করে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনির বলেন….

অচিরেই জনসাধারণের দুঃখ-কষ্ট লাঘবে সাঁকোর পরিবর্তে ব্রীজ নির্মাণ হবে বলে প্রত্যাশা এলাকাবাসির।
বিস্তারিত দেখুন নিচের ভিডিওতে…

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আরও পড়ুন